logo
Blog single photo

কথা রাখলেন মোদি, হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন ভর্তি বিমান নিউইয়র্কে

করোনার কালো থাবায় অন্ধকার নেমে এসেছে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী দেশ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। বেড়েই চলেছে লাশের সারি। এমন পরিস্থিতিতে ভারতের কাছে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন চেয়ে আবেদন করেছিলেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ভারত প্রথমে অস্বীকার করলেও ট্রাম্পের হুমকিতে সেই সিদ্ধান্ত বদলেছেন নরেন্দ্র মোদি। কথা দিয়েছিলেন নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়ে বন্ধু আমেরিকাকে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন দেবেন।মাত্র দুইদিনের মাথায় কথা রাখলেন মোদি। বন্ধু দেশকে পাঠিয়ে দিলেন বিমান ভর্তি হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন। তবে এই ঘটনায় খুশি নয় ভারতীয়রা। অনেকে প্রশ্ন তুলছেন, ভারতের নাগরিকদের প্রয়োজন না মিটিয়ে কেন হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন তুলে দেওয়া হচ্ছে আমেরিকার হাতে?বিষয়টি নিয়ে তর্কবিতর্কের মাঝেই হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন বোঝাই বিমান পৌঁছে গেল নিউইয়র্ক। রবিবার ভোরে বিমানবন্দর থেকে ছবি টুইট করে এই খবর জানান আমেরিকার ভারতীয় রাষ্ট্রদূত তরণজিৎ সিং সান্ধু।তিনি টুইট করেন, কভিড-১৯  এর বিরুদ্ধে যুদ্ধে আমাদের বন্ধুদের সাহায্য করা হচ্ছে। আজই ভারত থেকে আসা হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন ভর্তি বিমান নিউইয়র্ক বিমানবন্দরে পৌঁছে গেছে।হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন ভর্তি বিমান নিউইয়র্ক বিমানবন্দরে পৌঁছনোর পরেই উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে টুইট করতে আরম্ভ করেন আমেরিকানরা। নিউইয়র্কের এক বাসিন্দাও ট্রাম্প সমর্থক আল মাসন টুইট করেন, ভারতের এই মানবিক আচরণ আমেরিকা কোনদিনও ভুলতে পারবে না। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে বিশ্বের সবচেয়ে বড় দুটি গণতন্ত্রের দেশ যেভাবে একজোট হয়েছে তা আগে কোনদিন হয়নি।সূত্র- সংবাদ প্রতিদিন।
Top